24 June 2018 , Sunday
Bangla Font Download

You Are Here: Home » বিনোদন » জায়েদ খান-ইকবালের দ্বন্দ্ব চরমে

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নায়ক জায়েদ খান ও ফিল্প ক্লাব লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন জয় এর সঙ্গে মনোমালিন্য চরম আকার ধারণ করেছে। অবস্থা এমন দাড়িয়েছে যেখানে ইকবাল যান সেখানে জায়েদ খান যাচ্ছেন না।

জানা গেছে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সিনিয়র বিনোদন সাংবাদিক বাংলাদেশ’র কালচারাল রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক জুটন চৌধুরীর শোকসভায় যাননি নায়ক জায়েদ খান। তিনি বলেন, ইকবাল হোসেন যে অনুষ্ঠানে থাকবে সেখানে আমি যাব না।

শোকসভার আয়োজকরা জায়েদ খানকে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানালেও তিনি অনুষ্ঠানে যাননি। ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল ও মহাসচিব ওমর ফারুক, সদ্য বিদায়ী  ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, শাহ আলম কিরনসহ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সিনিয়র সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া নায়ক ওমর সানি, নায়িকা মৌসুমীসহ সাংবাদিক, শিল্পী কলাকুশলীরা উপস্থিত থাকলেও জায়েদ খান এফডিসিতে উপস্থিত থাকলেও শোকসভায় যাননি।

এদিকে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর পূবাইলে একটি ছবির শুটিংয়ে থাকায় আসতে পারবেন না বলে আয়োজকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আমার শুটিং না থাকলে জুটনের শোক সভায় আমি অবশ্যই উপস্থিত থাকতাম। কারণ জুটন আমাদের কাছের মানুষ ছিলো।

জানা গেছে যায়, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ফিল্মক্লাবের বনভোজন নিয়ে জায়েদ খান ও ইকবাল হোসেনের সাথে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। তার কয়েকদিন আগে শিল্পী সমিতির বনভোজনেও ইকবাল হোসেনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এটা নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব সুত্রপাত হয়। এর আগে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে জুটন চৌধুরীর মৃত্যুর পর জায়েদ খান শিল্পী সমিতির নামে একটি ব্যানার তৈরী করে শোক প্রকাশ করেন। যে ব্যানারটি শিল্পী সমিতির কার্যালয়ের সামনে টানিয়ে দেন। এরপর ১৮ ফেব্রুয়ারি দুপুরে এফডিসিতে জুটনের মরদেহ নেয়া হলে জায়েদ খান সেখানে উপস্থিত থেকে মরদেহে শ্রদ্ধা জানান। কিন্তু তার পর পরই বনভোজন নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়। এ কারণে জুটনের শোকসভার দিন এফডিসিতে উপস্থিত থাকলেও তিনি অংশগ্রহণ করেননি।

অপর একটি সুত্র জানায়, ইকবাল হোসেন জয় ঢাকাই চলচ্চিত্রের সুপারস্টার শাকিব খানের খুব ঘনিষ্ঠ। দুজনের মধ্যে দ্বন্দ্বের এটাও একটা কারণ। ফিল্মক্লাবের বনভোজনে শাকিব খান, ওমর সানি, মৌসুমী, অমিত হাসান উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বনভোজনে শাকিব খান, ওমর সানি, অমিত হাসান, মৌসুমী উপস্থিত ছিলেন না।

ফিল্ম ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন জয় দেশনিউজকে বলেন, আমার সাথে তার ব্যক্তিগত কোনে বিরোধ নেই। তিনি (জায়েদ খান) কেন এমন করছেন সেটা আমি জানি না। জুটন চৌধুরী ফিল্ম ক্লাবের সাবেক কর্মকর্তা ছিলেন, সেজন্য আমি তার শোকসভায় অংশ নিয়ে তার পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা অনুদান দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলাম। পরবর্তীতে সে টাকা হস্তান্তরও করেছি। শুনেছি জায়েদ খান শোক সভার আয়োজকদের কাছে বলেছেন, আমি শোকসভায় গেলে তিনি নাকি আসবেন না। এটার তার ব্যক্তিগত বিষয়। এনিয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই। তবে সেদিন শোকসভায় জায়েদ খান না যাওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে উপস্থিত সাংবাদিকরা বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

Use Facebook to Comment on this Post

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

উপদেষ্টা : মাসুদ রানা, কাজী আকরাম হোসেন, খন্দকার সাঈদ আহমেদ, প্রকাশক : রোকেয়া চৌধুরী বেবী, সম্পাদক : রফিক আহমেদ মুফদি, বিশেষ প্রতিনিধি : মোস্তাক হোসেন, মনিরুল ইসলাম, চিফ রিপোর্টার: হানিফ চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : জাকির হোসেন। যোগাযোগ: ২৭৮, পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা-১২১৯। বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রুম নম্বর ১২০৪, মৌচাক টাওয়ার, মালিবাগ মোড়, ঢাকা। মোবাইল : ০১৮১৯-০৬৭৫২৯, ই-মেইল: monirjjd@yahoo.com,

Site Hosted By: WWW.LOCALiT.COM.BD