16 August 2018 , Thursday
Bangla Font Download

You Are Here: Home » মুক্তকলম, সর্বশেষ সংবাদ » মৌসুমীকে দেখে পথশিশু মুক্তা’র স্বপ্নপূরণ

অভি   মঈনুদ্দীন   ঃ  সেদিন   ছিলো   ১১   জুন,   সোমবার।   বাংলাদেশ   কালচারাল
রিপোর্টার্স   এসোসিয়েশন’র   আয়োজনে   রাজধানীর   মগবাজারের   একটি
রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয় দোয়া ও ইফাতার মাহফিল। দেশের অন্যান্য অনেক তারকার
মতো প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী ও তার স্বামী চিত্রনায়ক ওমরসানীও এই দোয়া ও
ইফতার মাহফিলে অংশ নিয়েছিলেন। ইফতার শেষে ওমরসানী ও মৌসুমী বাসায়
চলে যাবার জন্য যখন নীচে নেমে আসেন তখন সেখানে একটি হুইল চেয়ারে বসা
মেয়ে মায়ের সহযোগিতায় মৌসুমীর দিকে এগিয়ে আসেন। মৌসুমী’কে
পাশে থেকে চিত্রনায়ক কায়েস আরজু বলছিলেন, আপু আপনাকে দেখার জন্য এই
পথশিশু অনেকক্ষণ ধরে অপেক্ষা করছে। আরজুর কথা শুনে মৌসুমী ওমরসানী দু’জনই
মুক্তার কাছে গেলেন। মুক্তা তার মা মমতাকে সঙ্গে নিয়ে এই রাজধানী শহরে ভিক্ষা
করে জন্মের পর থেকেই। মৌসুমীও সে কথা জেনে আর্থিতভাবে সহযোগিতা
করার জন্য যখন মুক্তার দিকে এগিয়ে গেলেন তখন মুক্তা শুধু বারবার বলছিলেন,‘
আমার কিছুই   লাগবোনা  আপা,   কিছুই   লাগবোনা।  আল্লাহর   কাছে   দোয়া
করছিলাম, আমি যেন আপনারে একদিন একনজর দেখতে পারি। আল্লাহ আমার মনের
আশা পূরণ করছেন। আমি আর কিছু চাইনা। আল্লাহ আপনারে ভালো রাখুন এই
দোয়া করি আপা। আপনারা দু’জন সুখে থাকেন, ভালো থাকেন দোয়া করি।’
মুক্তা  যখন   এই   কথাগুলো  মৌসুমী  সানীর  উদ্দেশ্য   বলছিলেন   তখন মুক্তার  মুখে
মৌসুমীকে দেখতে পারার কারণে এক ভীষণ উচ্ছাস আর আনন্দ দেখা যাচ্ছিলো।
মৌসুমী চলে যাবার পর মুক্তা তার মা মমতাকে সঙ্গে নিয়ে চলে যান নিজের
আগামী   দিনের   জন্য   অর্থ   সংগ্রহ   করতে।   মৌসুমী   বলেন,‘   সত্যিই   এক
অন্যরকম   মুহুর্তের   মুখোমুখি   হয়েছিলাম   সেদিন।   বারবার   মুক্তার   সেই
হাস্যোজ্জ্বল মুখটির দিকে তাকিয়ে ছিলাম আমি। মানুষ আমাকে ভালোবাসে
জানি,   কিন্তু   মুক্তার   এই   ভালোবাসার   তুলনা   হয়না   কোনকিছুতেই।   শুধুমাত্র
আমাকে  অল্প   সময়ের   জন্য  দেখেই   সে   যে   পরিমাণ   খুশি   হয়েছিলো   তার  সেই
উৎফুল্ল মুখখানি এখনো চোখে ভাসছে।’ ওমরসানী বলেন, ‘মৌসুমীর প্রতি
মুক্তার ভালোবাসা দেখে আমি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিলাম। এই ভালোবাসা
কোনকিছুর বিনিময়ে পাওয়া যায়না। মুক্তার নিষ্পাপ মনের ভালোবাসার কাছে
আমরা ঋণী হয়ে রইলাম।’
ছবি ঃ অভি মঈনুদ্দীন

ক্স মৌসুমী’কে দেখে পথশিশু মুক্তা’র স্বপ্নপূরণঅভি   মঈনুদ্দীন   ঃ  সেদিন   ছিলো   ১১   জুন,   সোমবার।   বাংলাদেশ   কালচারালরিপোর্টার্স   এসোসিয়েশন’র   আয়োজনে   রাজধানীর   মগবাজারের   একটিরেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয় দোয়া ও ইফাতার মাহফিল। দেশের অন্যান্য অনেক তারকারমতো প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী ও তার স্বামী চিত্রনায়ক ওমরসানীও এই দোয়া ওইফতার মাহফিলে অংশ নিয়েছিলেন। ইফতার শেষে ওমরসানী ও মৌসুমী বাসায়চলে যাবার জন্য যখন নীচে নেমে আসেন তখন সেখানে একটি হুইল চেয়ারে বসামেয়ে মায়ের সহযোগিতায় মৌসুমীর দিকে এগিয়ে আসেন। মৌসুমী’কেপাশে থেকে চিত্রনায়ক কায়েস আরজু বলছিলেন, আপু আপনাকে দেখার জন্য এইপথশিশু অনেকক্ষণ ধরে অপেক্ষা করছে। আরজুর কথা শুনে মৌসুমী ওমরসানী দু’জনইমুক্তার কাছে গেলেন। মুক্তা তার মা মমতাকে সঙ্গে নিয়ে এই রাজধানী শহরে ভিক্ষাকরে জন্মের পর থেকেই। মৌসুমীও সে কথা জেনে আর্থিতভাবে সহযোগিতাকরার জন্য যখন মুক্তার দিকে এগিয়ে গেলেন তখন মুক্তা শুধু বারবার বলছিলেন,‘আমার কিছুই   লাগবোনা  আপা,   কিছুই   লাগবোনা।  আল্লাহর   কাছে   দোয়াকরছিলাম, আমি যেন আপনারে একদিন একনজর দেখতে পারি। আল্লাহ আমার মনেরআশা পূরণ করছেন। আমি আর কিছু চাইনা। আল্লাহ আপনারে ভালো রাখুন এইদোয়া করি আপা। আপনারা দু’জন সুখে থাকেন, ভালো থাকেন দোয়া করি।’মুক্তা  যখন   এই   কথাগুলো  মৌসুমী  সানীর  উদ্দেশ্য   বলছিলেন   তখন মুক্তার  মুখেমৌসুমীকে দেখতে পারার কারণে এক ভীষণ উচ্ছাস আর আনন্দ দেখা যাচ্ছিলো।মৌসুমী চলে যাবার পর মুক্তা তার মা মমতাকে সঙ্গে নিয়ে চলে যান নিজেরআগামী   দিনের   জন্য   অর্থ   সংগ্রহ   করতে।   মৌসুমী   বলেন,‘   সত্যিই   একঅন্যরকম   মুহুর্তের   মুখোমুখি   হয়েছিলাম   সেদিন।   বারবার   মুক্তার   সেইহাস্যোজ্জ্বল মুখটির দিকে তাকিয়ে ছিলাম আমি। মানুষ আমাকে ভালোবাসেজানি,   কিন্তু   মুক্তার   এই   ভালোবাসার   তুলনা   হয়না   কোনকিছুতেই।   শুধুমাত্রআমাকে  অল্প   সময়ের   জন্য  দেখেই   সে   যে   পরিমাণ   খুশি   হয়েছিলো   তার  সেইউৎফুল্ল মুখখানি এখনো চোখে ভাসছে।’ ওমরসানী বলেন, ‘মৌসুমীর প্রতিমুক্তার ভালোবাসা দেখে আমি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিলাম। এই ভালোবাসাকোনকিছুর বিনিময়ে পাওয়া যায়না। মুক্তার নিষ্পাপ মনের ভালোবাসার কাছেআমরা ঋণী হয়ে রইলাম।’ছবি ঃ অভি মঈনুদ্দীন

Use Facebook to Comment on this Post

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

উপদেষ্টা : মাসুদ রানা, কাজী আকরাম হোসেন, খন্দকার সাঈদ আহমেদ, প্রকাশক : রোকেয়া চৌধুরী বেবী, সম্পাদক : রফিক আহমেদ মুফদি, বিশেষ প্রতিনিধি : মোস্তাক হোসেন, মনিরুল ইসলাম, চিফ রিপোর্টার: হানিফ চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : জাকির হোসেন। যোগাযোগ: ২৭৮, পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা-১২১৯। বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রুম নম্বর ১২০৪, মৌচাক টাওয়ার, মালিবাগ মোড়, ঢাকা। মোবাইল : ০১৮১৯-০৬৭৫২৯, ই-মেইল: monirjjd@yahoo.com,

Site Hosted By: WWW.LOCALiT.COM.BD