19 October 2018 , Friday
Bangla Font Download

You Are Here: Home » মুক্তকলম, সর্বশেষ সংবাদ » ঐক্যবদ্ধ থাকলে আওয়ামী লীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না:ওবায়দুল কাদের

ডেস্ক রিপোর্ট: আওয়ামী লীগ সাধারণ সমপাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে আওয়ামী লীগের বিজয় কেউ  ঠেকাতে পারবে না। গতকাল সড়ক পথে সাংগঠনিক কর্মসূচি পালনের দ্বিতীয় দিনে চট্টগ্রামে পৃথক সমাবেশে তিনি একথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগকে ছাড়া কোনো জাতীয় ঐক্য হতে পারে না। হলে সেটা হবে সাম্প্রদায়িক ঐক্য। ওই ঐক্য হবে দলের ঐক্য, নেতায় নেতায় ঐক্য। এ ঐক্য জনগণের ঐক্য হবে না। সকাল ১১টায় কর্ণফুলী উপজেলার ক্রসিং এলাকায় পথসভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নয়ন হয়। আজ দেশের মানুষের নিরাপত্তা রয়েছে। কিন্তু বিএনপি ক্ষমতায় এলে কখনো দেশের উন্নয়ন হবে না। অতীতেও হয়নি। মানুষের কোনো নিরাপত্তা থাকবে না। বিএনপি যে ভুয়া মিথ্যাবাদী দল তার প্রমাণ হয়ে গেছে। জাতিসংঘের দাওয়াত নিয়ে তারা প্রতারণা করেছে। ওবায়দুল কাদের বলেন, ফখরুল সাহেব মিডিয়ায় প্রচার করেছেন, জাতিসংঘের মহাসচিব তাকে দাওয়াত করেছেন। তিনি জাতিসংঘে গেলেন। মহাসচিব তখন ঘানায়, যুক্তরাষ্ট্রে নেই। তৃতীয় শ্রেণির একজন কর্মকর্তার সঙ্গে অনেক অনুনয়-বিনয় করে কিছুক্ষণ কথা বলেছেন। নালিশ করে দেশে ফিরেছেন।

তিনি বলেন, আমার প্রশ্ন- জাতিসংঘের মহাসচিব দাওয়াত করেছেন বলে বাংলাদেশের জনগণের সঙ্গে কেন প্রতারণা করা হলো? কেন মিথ্যাচার করা হলো? এর মধ্য দিয়ে কি প্রমাণ হয়- সব ভুয়া, ভুয়া ভুয়া। নেতাকর্মীদের তিনি প্রশ্ন রাখেন, কে ভুয়া? জবাব আসে-ফখরুল ভুয়া। কারা ভুয়া-বিএনপি ভুয়া।

কাদের বলেন, এরকম প্রতারক দল ক্ষমতায় এলে দেশে গণতন্ত্র থাকবে না, দেশের নিরাপত্তা থাকবে না। দেশের উন্নয়ন হবে না।
বিএনপির আন্দোলন নিয়েও হাসিঠাট্টা করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, রোজার ঈদ, কোরবানির ঈদ তারপর আবার রোজার ঈদ- এভাবে ২০টা ঈদ চলে গেল। কেটে গেল ১০টা বছর। আন্দোলন হবে কোন বছর? নির্বাচনের বাকি তিন মাস। মানুষ এখন নির্বাচনমুখী। এখন কি আর আন্দোলন হবে?
কোটা আন্দোলন ও নিরাপদ সড়কের আন্দোলনের প্রসঙ্গ টেনে কাদের বলেন, আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি কোটার ওপর ভর করেছিল। ছাত্রছাত্রীদের নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে ভর করেছিল। আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা হয়েছিল। অথচ এক মহিলা কাঁদতে কাঁদতে বলছে, আওয়ামী লীগ অফিসে নাকি চারজনকে মেরে ফেলা হয়েছে। একজনকে রেপ করা হয়েছে। চোখ চলে গেছে আওয়ামী লীগের কর্মীর। কোনো কোনো মিডিয়া প্রচার করলো যে, আন্দোলনরত এক ছাত্রের চোখ চলে গেছে। এটা কি? গুজব সন্ত্রাস। এটা এখনও আছে। এই গুজব সন্ত্রাস প্রতিরোধ করতে হবে। জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার প্রসঙ্গ টেনে কাদের বলেন, নেতায়-নেতায় ঐক্য, এটা জাতীয়তাবাদী ঐক্য। শেখ হাসিনা, আইআরআই জরিপে এসেছে ৬৬ শতাংশ জনপ্রিয়। ৬৬ শতাংশ জনপ্রিয়তাকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য হয় না। আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে কোনো জাতীয় ঐক্য হবে না। হবে জাতীয়তাবাদী-সামপ্রদায়িক ঐক্য। বাংলাদেশের জনগণের কাছে এই ঐক্যের কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই।

মাদকের বিরুদ্ধে দলীয় নেতাকর্মীদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, মাদক আমাদের যুবসমাজকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর তৎপরতায় আজ দেশে মাদক কমে এসেছে। শুধু আইনশৃঙ্খলাবাহিনী তৎপর হলে হবে না আমাদের সকলকে মাদককে না বলতে হবে।
পথসভায় চট্টগ্রামের ছেলেরা মোটরসাইকেল চালালেও হ্যালমেট ব্যবহার করছে না বলে অভিযোগ করেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় হ্যালমেট ব্যবহারে ছেলেদের উৎসাহিত করতে মঞ্চে উপস্থিত ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদকে নির্দেশনা দেন মন্ত্রী।

শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ সফর শুরু করে ঢাকা থেকে কুমিল্লা হয়ে ফেনীতে পথসভা করে দলটি। পরে দলটি রাত সাড়ে ৮টার দিকে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে এসে পৌঁছালে চট্টগ্রাম সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সমপাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন স্বাগত জানান।

রোববার সকাল ১১টায় সার্কিট হাউস থেকে রওনা হয়ে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী বহরটি চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের কর্ণফুলীর ক্রসিং এলাকায় পথসভা শেষ করে পটিয়ায় রওনা দেয়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সমপাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ছাড়াও সড়ক যাত্রায় সাংগঠনিক দলে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সমপাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, প্রচার সমপাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সমপাদক এনামুল হক শামীম, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী, উপ-প্রচার সমপাদক আমিনুল ইসলামসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

লোহাগাড়ায় সমাবেশ: এদিকে বিকাল ৩টায় লোহাগাড়া উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্থানীয় চুনতি মেহেরুন্নিছা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত এক সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের। চুনতি ইউপি চেয়ারম্যান জয়নুল আবেদীন জনুর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল হানিফ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস ছবুর, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোসলেম উদ্দীন আহমদ, স্থানীয় সংসদ সদস্য আবু রেজা মো. নেজামুদ্দীন নদভী, পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী, চন্দনাইশের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তফিজুর রহমান চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, স্বাচিপের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আ.ম.ম মিনহাজুর রহমান, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দীন হিরু, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এমএ মোতালেব সিআইপি, সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য আনোয়ার কামাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা ও চুনতি মেহেরুন্নিছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী রুমানা জান্নাত প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু আসলাম। সুধী সমাবেশের পূর্বে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মো. জয়নুল আবেদীন বীরবিক্রম পিএসসি’র মরহুম পিতার নামে নির্মিত ২০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা ব্যয়ে সাড়ে ১০ কিমি দীর্ঘ ইছহাক মিয়া সড়কের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

Use Facebook to Comment on this Post

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

উপদেষ্টা : মাসুদ রানা, কাজী আকরাম হোসেন, খন্দকার সাঈদ আহমেদ, প্রকাশক : রোকেয়া চৌধুরী বেবী, সম্পাদক : রফিক আহমেদ মুফদি, বিশেষ প্রতিনিধি : মোস্তাক হোসেন, মনিরুল ইসলাম, চিফ রিপোর্টার: হানিফ চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : জাকির হোসেন। যোগাযোগ: ২৭৮, পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা-১২১৯। বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রুম নম্বর ১২০৪, মৌচাক টাওয়ার, মালিবাগ মোড়, ঢাকা। মোবাইল : ০১৮১৯-০৬৭৫২৯, ই-মেইল: monirjjd@yahoo.com,

Site Hosted By: WWW.LOCALiT.COM.BD