January 16, 2021, 8:13 am

জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে প্রণব মুখার্জি

জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে প্রণব মুখার্জি

পড়ে গিয়ে মাথায় রক্ত জমাট বেঁধেছিল। জরুরি অস্ত্রোপচারের আগে পরীক্ষানিরীক্ষা করতে গিয়ে ধরা পড়ল কোভিড। সোমবার দুপুরে নিজেই টুইট করে করোনা সংক্রমণের খবর জানিয়েছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। রাতের খবর, অস্ত্রোপচারের পরে তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে।

এ দিন দুপুরে প্রণববাবুর কোভিড হওয়ার কথা জানা গেলেও তখনও চোট-আঘাতের খবর প্রকাশ্যে আসেনি। ‘সিটিজেনমুখার্জি’র টুইট শুধু বলেছিল, ‘‘অন্য চিকিৎসার কারণে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। কোভিড-১৯ পরীক্ষায় ফল পজ়িটিভ এসেছে। যাঁরা গত সপ্তাহে আমার সঙ্গে দেখা করেছিলেন, তাঁরা দয়া করে পরীক্ষা করান এবং নিভৃতবাসে চলে যান।’’
প্রণববাবুর অফিস থেকেও তার পরপরই জানানো হয়, কিছু রুটিন পরীক্ষার জন্য এ দিন তাঁকে হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেখানে কোভিড পরীক্ষার ফল পজ়িটিভ আসায় তাঁর বাড়ির এবং অফিসের সকলের পরীক্ষা করানো হচ্ছে। প্রণববাবু আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল হসপিটালে ভর্তি রয়েছেন।

কিন্তু সন্ধের পরে সূত্র মারফত জানা যায়, আগের দিন রাতে শৌচাগারে পড়ে গিয়েছিলেন প্রণববাবু। তাঁর মাথায় আঘাত লেগেছিল। মাথা আপাত ভাবে ফাটেনি, কিন্তু স্নায়ুর কিছু সমস্যা দেখা দেওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরীক্ষা করে দেখা যায়, তাঁর মাথার ভিতরে রক্ত জমাট বেঁধে আছে। জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্রোপচার করা দরকার। তার জন্য প্রয়োজনীয় পরীক্ষানিরীক্ষা করতে গিয়েই ধরা পড়ে, তাঁর কোভিডও হয়েছে। এ দিনই অস্ত্রোপচার হয়ে গিয়েছে প্রণববাবুর। তাঁকে ভেন্টিলেশনে দিয়ে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকরা।
প্রণববাবুর অসুস্থতার খবর আসার পর থেকেই একের পর এক আরোগ্য কামনার বার্তা আসতে শুরু করে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ সরাসরি হাসপাতালে যান। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ প্রণববাবুর মেয়ে শর্মিষ্ঠাকে ফোন করে খোঁজ নেন। রাহুল গাঁধী প্রণবের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে টুইট করেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করে জানান, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় করোনা-আক্রান্ত হওয়ায় তিনি উদ্বিগ্ন। তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন মমতা। কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী, অজয় মাকেন, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গয়ালরাও আরোগ্য কামনা করেন। অধীর ফেসবুকে লেখেন, ‘খুব চিন্তায় আছি।’ প্রদেশ কংগ্রেস নেতা, সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘প্রণববাবু, সুস্থ হয়ে ফিরে আসুন, এটাই প্রার্থনা।’’

সূত্রের খবর, গত কয়েক মাস বাড়ি থেকে কার্যত বাইরে যাননি প্রণববাবু। তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসা মানুষের সংখ্যাও ছিল খুবই কম। দূরে একটি চেয়ার রেখে তাঁদের বসানো হত। ঘনিষ্ঠ শিবিরে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি জানিয়েছিলেন যে, তিনি আজকাল প্রত্যেক দিন তাঁর ডায়েরিতে কোভিড সংক্রান্ত খবরাখবর লিখে রাখছেন এবং গোটা বিশ্বে কী হচ্ছে না হচ্ছে, তার দিকে নজর রাখছেন।

সম্প্রতি দেশের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের অনেকেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, কর্নাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুনরাম মেঘওয়াল এবং ধর্মেন্দ্র প্রধানের চিকিৎসা চলছে। মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান, এবং কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরাপ্পা করোনামুক্ত হয়েছেন। সুত্র: আনন্দ বাজার পত্রিকা

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © deshnews24
Hosted By LOCAL IT